Homeজাতীয়টানা বর্ষণে ডুবছে চট্টগ্রাম নগরী

টানা বর্ষণে ডুবছে চট্টগ্রাম নগরী

টানা বর্ষণে চট্টগ্রাম মহানগরীর বেশ কিছু এলাকা ডুবে গেছে। সড়ক, আবাসিক এলাকা থেকে শুরু করে হাসপাতালেও জমেছে হাঁটু পানি। একদিকে বৃষ্টি, অন্যদিকে জলাবদ্ধতার কারণে বিপাকে পড়েছেন নগরবাসী।

শুক্র ও শনিবারের টানা বর্ষণে মহানগরীর কাতালগঞ্জ, বাকলিয়া ডিসি রোড, বহদ্দারহাট, কাপাসগোলা, শুলকবহর, মুরাদপুর, ষোলশহর ২ নম্বর গেইট, আগ্রাবাদ সিডিএ, হালিশহর, মোগলটুলি, ট্রাঙ্ক রোড, তালতলা, চাঁন্দগাও, খতিবের হাট, সিঅ্যান্ডবি কলোনি, ফিরিঙ্গিবাজার, আলকরণ, বাকলিয়া আবদুল লতিফ হাটখোলা সড়কে পানি জমেছে।

গত দুদিনের হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের কারণে এসব সড়কে যানবাহনও কম ছিল। বৃষ্টির কারণে সাধারণ মানুষ ঘর ছেড়ে বের হননি। তবে কর্মস্থলমুখী লোকজনকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। বিশেষ করে অনেক সড়কে সিএনজি অটোরিকশার স্বল্পতা ছিল। সকালে জলাবদ্ধতার কারণে মুরাদপুর এলাকার লোকজনকে পানির মধ্য দিয়ে হেঁটেও কর্মস্থলে যেতে দেখা গেছে।

এদিকে, বহদ্দারহাট-লালখান বাজার আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারেও পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা অপ্রতুল হওয়ায় ফ্লাইওভারের ২নং গেটে বেশ কিছুক্ষণ পানি জমেছিল। সর্বশেষ শুক্রবার ফ্লাইওভারটিতে জলজট তৈরি হলে ওইদিন রাত সাড়ে ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ফ্লাইওভারেই যানজট তৈরি হয়। এতে কয়েকশত যানবাহন আটকা পড়ে।

বর্ষা মৌসুম শুরু হতে না হতেই জলাবদ্ধতার এমন দুর্ভোগের জন্য অপরিকল্পিতভাবে খাল ভরাট করে রাখাকে দায়ী করছেন নগরবাসী। বিশেষ করে নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে গত ৫ বছর ধরে বাস্তবায়নাধীন ১০ হাজার কোটি টাকার চারটি প্রকল্পই তাদের বেশি করে ভোগাচ্ছে বলে অভিমত অনেকের।

নগরবাসীরা বলছেন, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ), সিটি কর্পোরেশন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প ছাড়াও বিভিন্ন খালে বাঁধ দিয়ে রাখার কারণে ভবিষ্যতে জলাবদ্ধতা পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশংকা করছেন অনেকে। বর্তমানে সামান্য বৃষ্টিতে জলজটে শহরের সড়কে নামা লোকজনকে যেমন ভোগান্তি পোহাতে হয়, তেমনই নিচু এলাকার কিছু বাসা বাড়িতে পানি ঢোকায় নগরবাসীকে পোহাতে হয় অবর্ণনীয় দুর্ভেোগ।

RELATED ARTICLES

Most Popular