Homeশিক্ষাঙ্গনবাংলা গবেষণা চৌর্যবৃত্তি নির্ণয়ে সফটওয়্যার উদ্ভাবন করলো ঢাবি

বাংলা গবেষণা চৌর্যবৃত্তি নির্ণয়ে সফটওয়্যার উদ্ভাবন করলো ঢাবি

দেশের বিভিন্ন পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে প্রায় গবেষণাপত্র, আর্টিকেল, এসাইনমেন্টে চৌর্যবৃত্তির অভিযোগ উঠে। গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি শনাক্তকরণে সহায়তার জন্য পৃথিবীব্যাপী জনপ্রিয় সফটওয়্যার হচ্ছে টারনিটিন।

কিন্তু এই সফটওয়্যার শুধু ইংরেজি গবেষণার সিমিলারিটি ইনডেক্স নির্ণয় করতে সক্ষম। সেক্ষেত্রে বাংলা গবেষণায় সিমিলারিটি ইনডেক্স নির্ণয় করার জন্য কোনো সফটওয়্যার নেই। এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্ভাবন করেছে বাংলা গবেষণা চৌর্যবৃত্তি ধরার সহযোগী সিমিলারিটি ইনডেক্স নির্ণয়কারী dubd21 সফটওয়্যার।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট)  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই সফ্টওয়্যার উদ্বোধন করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কার্যালয় সংলগ্ন প্রফেসর আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে বাংলা টেক্সট সিমিলারিটি নির্ণয়ের এ সফটওয়্যার উদ্বোধন করা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সফটওয়্যারটি উদ্বোধন করেন।

সফটওয়্যারটি উদ্ভাবন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি ইন্সটিটিউটের সহকারী অধ্যাপক আবদুস সাত্তার এবং তার টিম।

আবদুস সাত্তার বলেন, এই সফটওয়ারের আরো ডেভেলপমেন্ট হবে। প্রাইমারী সোর্স ইনক্লিড করাসহ এতে বিভিন্ন সংযোজন করতে হবে। তারপর নীতিমালার আলোকে আমরা এটিকে কমার্শিয়ালি লঞ্চ করবো।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এই সফট্ওয়্যার উদ্ভাবনের জন্য গবেষকদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, এটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌলিক গবেষণার ক্ষেত্রে একটি অসাধারণ অর্জন। এই সফট্ওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলায় রচিত এমফিল ও পিএইচডি থিসিস, জার্নাল, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, শিক্ষার্থীদের থিসিস, অ্যাসাইনমেন্টসহ সংশ্লিষ্ট গবেষণা পত্রের তথ্যসূত্র যাচাই এবং বাংলা টেক্সট সিমিলারিটি নির্ণয় করা যাবে। শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়ন এবং মৌলিক ও প্রায়োগিক গবেষণার ক্ষেত্রে এই সফট্ওয়্যার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এ ধরণের মৌলিক উদ্ভাবন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‍্যাংকিং-এর উন্নয়নে অবদান রাখবে এবং দেশের সার্বিক উন্নয়নেও এর প্রভাব পড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, এই সফট্ওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে গবেষকরা পূর্বে প্রকাশিত সমধর্মী কাজ সম্পর্কে জানতে পারবেন। একইসঙ্গে শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীরা মৌলিক গবেষণা পরিচালনার ক্ষেত্রে আরও সচেতন হবেন।

এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন ইনস্টিটিউটের পরিচালক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, প্রক্টর এবং অফিস প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, dubd21 নামের এই সফটওয়্যারে বাংলা ভাষায় লিখিত বিভিন্ন রিসার্চ আর্টিকেল, এসাইনমেন্ট প্রাইমারী সোর্স হিসেবে ইনক্লুড করা হবে। সেক্ষেত্রে উইকিপিডিয়াসহ বিভিন্ন গবেষণা জানর্নালকে ব্যবহার করা হবে। তারপর নতুন কোনো গবেষণার সিমিলারিটি ইনডেক্স নির্ণয়য়ের জন্য সফটওয়্যারে ইনপুট করা হলে সফটওয়্যার সেটি নির্ণয় করবে।

RELATED ARTICLES

Most Popular