Homeরাজনীতিচলমান রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে গণঅধিকার পরিষদ এর সাথে বিএনপির সংলাপ

চলমান রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে গণঅধিকার পরিষদ এর সাথে বিএনপির সংলাপ

আলোচনায় অর্থনীতিবিদ ড.রেজা কিবরিয়া ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুলহক নুরের নেতৃত্বাধীন দল “গণঅধিকার পরিষদ” ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিএনপি এই আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

তারিখঃ ০৩/০৮/২০২২ ইং

প্রেসবিজ্ঞপ্তি

দেশের চলমান সংকট থেকে উত্তরণ ও রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক রূপান্তরে অন্যান্য গণতন্ত্রকামী দেশপ্রমিক দলসমূহের সাথে গণঅধিকার পরিষদ নিম্নোক্ত বিষয়ে একত্রে বা যুগপৎভাবে কাজ করতে নীতিগতভাবে একমত পোষণ করে।অদ্য ০৩/০৮/২০২২ ইং তারিখ সকাল ১১ টায় গণঅধিকার পরিষদ এর কেন্দ্রীয় কার্যলয়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর প্রতিনিধি দলের সাথে নিম্নোক্ত ১০ দফার ভিত্তিতে আলোচনা হয়।

১/ ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় জনগণের ভোটবিহীন জোরজবরদস্তি করে ক্ষমতায় থাকা বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকার হঠাতে যুগপৎ বা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন-সংগ্রাম।

২/অবাধ ,সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে বর্তমান সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করে সংসদ বিলুপ্ত ঘোষণা করা, রাজনৈতিক দলগুলোর ঐক্যমতের ভিত্তিতে একটি অর্ন্তবর্তীকালীন সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা।নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য ব্যক্তিদের সমন্বয়ে নির্বাচন কমিশন পুর্নগঠন ,ইভিএম বাতিল করে স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে ভোটগ্রহণ।

৩/ রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক রূপান্তর ও কার্যকর সংসদ প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতির ক্ষমতার ভারসাম্য আনায়নসহ সংবিধানের প্রয়োজনীয় সংস্কার।

৪/বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে সম্পুর্ণরূপে আলাদা করে প্রধান বিচারপতিসহ বিচারক নিয়োগে একটি স্বাধীন কমিশন গঠন।

৫/বাক,ব্যক্তি ও সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা, সভা-সমাবেশ করার অধিকারসহ নাগরিকদের সংবিধান স্বীকৃত সকল অধিকার প্রতিষ্ঠা।

৬/ খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দী ও ধর্মীয় নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার।ভিন্নমতের উপর রাষ্ট্রীয় দমন, পীড়ন, গুম, খুন, নির্যাতন-নিপীড়ন, হামলা- মামলা বন্ধে পদক্ষেপ।

৭/ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, বিশেষ ক্ষমতা আইনসহ সকল গণবিরোধী ও নিপীড়নমূলক আইন বাতিল করা।

৮/ বর্তমান সরকারের গত ১৩ বছরের দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের শ্বেতপত্র প্রকাশ করে দুর্নীতি ও অর্থপাচার রোধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ।

৯/মেগা প্রকল্প ও কুইক রেন্টালের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাটের সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে বিচার নিশ্চিত করা এবং দীর্ঘমেয়াদী জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে আইন করে বাপেক্সেকে শক্তিশালী স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলা।

১০/রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন,বিদেশী রাষ্ট্রের সাথে বাংলাদেশের চুক্তি,প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দেশ,দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বসহ জাতীয় স্বার্থে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা।

বার্তাপ্রেরক,
শাকিল উজ্জমান
যুগ্মআহ্বায়ক ও দপ্তর সমন্বয়ক
গণঅধিকার পরিষদ।
+8801758821025

RELATED ARTICLES

Most Popular